fbpx

স্ত্রী ও প্রসূতি বিষয়ক শারীরিক সমস্যায় আমাদের দেশে অনেক মহিলা ভুগে থাকেন। যে সমস্যাগুলো সমাধানে কোনো নির্দিষ্ট পাথেয় নেই একটু ভিন্ন ভাবে চিন্তা করলে এই সমস্যাগুলো সমাধান করা অতি সহজ।

বাচ্চা প্রসবের আগে ও পরে কি কি সমস্যা হতে পারে :

  • গর্ভকালীন ও প্রসবকালীন সময়ে কোমর ও পিঠে ব্যথা (এ সময় পেট সামনের দিকে বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে কোমর ও পিঠের মেরুদন্ড ও মাংসপেশীতে অতিরিক্ত চাপ পড়ে)
  • প্রসবকালীন সময়ে অধিক ব্যথা
  • সিমফাইসিস পিউবিস ডিসফংশন
  • গর্ভকালীন ও প্রসবকালীন শ্বাস-প্রশ্বাসে সমস্যা
  • প্রসবের পূর্বে ও পরে পা ফুলে যাওয়া
  • গাইনি সার্জরির পরবর্তী জটিলতা- কোমরের ইনজেকশনের জন্য ব্যথা
  • গাইনি সার্জারীর পর সেলাই স্থানে টান লাগা
  • প্রসব পরবর্তী কাশিতে প্রসব ধরে রাখা কষ্টকর (অনেকের কাশির সাথে দু এক ফোঁটা প্রসাব বের হয়)

আরও পড়ুনঃ গর্ভবতী মায়ের খাবার তালিকা

ফিজিওথেরাপির উদ্দেশ্য :

  • প্রসব ত্বরান্বীতকরণ
  • প্রসবকালীন ব্যথা প্রশমন
  • কোমর ও পিঠে ব্যথা নিরাময়
  • সেলাই বা স্ট্রেস স্থানে টান কমানো
  • গর্ভকালীন ও প্রসবকালীন সময়ে শ্বাস-প্রশ্বাসের সমস্যা সমাধান
  • প্রসব পরবর্তী পেটের চর্বি কমা ও মাংসপেশী সঙ্কতি করা
  • প্রসবের পর পেলভিক ফ্লোর মাংসপেশী শক্তিশালী করা

কিভাবে ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা দেয়া হয় :

  • অ্যাকটিভ ও প্যাসিভ এক্সারসাইজের মাধ্যমে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি করা
  • ফুসফুস সহ শারীরিক সতকর্তার জন্য অ্যারোবিক এক্সারসাইজ করানো
  • গর্ভকালীন অবস্থায় পশ্চারাল উপদেশ দেয়া
  • পেলভিক ফ্লোর মাংসপেশীকে স্ট্রেথিনিং এক্সারসাইজ করানো যাতে প্রসাব ঠিকমত ধরে রাখা যায়।
  • পেটের মাংসপেশীর ব্যায়াম করানো যাতে পেটের চর্বি কমে যায়
  • কোমর ও পিঠ ব্যথায় ম্যানুয়াল থেরাপি দেয়া এবং সাপের্টিভ বেল্ট ব্যবহার করানো
  • পা ফুলে গেলে রাতে শোয়ার পর পা বালিশে উঁচু করে রাখা যাতে ফুলা কমে যায় এবং থেরাপিউটিক এক্সারসাইজ করানো
  • ব্যাক মাংসপেশী স্ট্রেংনিং এক্সারসাইজ করানো
  • ব্যথার জন্য ইলেকট্রোথেরাপী যেমন আই.আর.আর, সর্ট ওয়েভ ডায়াথার্মি, টেনস ও আলট্রাসাউন্ড থেরাপী ব্যবহার করা যেতে পারে।
Follow me

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This field is required.

This field is required.

Call Now